ঈদুল আযহা উপলক্ষে বাসের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু

চ্যানেল নিউজ :: আসন্ন ঈদুল আযহা উপলক্ষে বিভিন্ন রুটের বাস কাউন্টার থেকে বাসের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু হয়েছে। মঙ্গলবার (৭ আগস্ট) সকাল ৬টা থেকে অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু করেছে সংশ্লিষ্টরা।

রাজধানীর গাবতলী বাস টার্মিনালে সকাল থেকে টিকিট প্রত্যাশীদের দীর্ঘ লাইন লক্ষ করা গেছে। বিশেষ করে বালুর মাঠের হানিফ কাউন্টারে যাত্রীদের ভিড় বেশি। উত্তরবঙ্গে চলাচলকারী বাসগুলোর মধ্যে হানিফ পরিবহন সবচাইতে বেশি বাস ছাড়ে। যে কারণে এই কাউন্টারে বরাবরই ভিড় থাকে বেশি।

ঠাকুরগাঁও, পঞ্চগড়, পলাশবাড়ী, গাইবান্ধা, ঘোরঘাট, ভাদুরিয়া, ফুলবাড়ী, দিনাজপুর, ডিমলা, চিলাহাটী, ভাইলাগঞ্জ, ঝাড়বাড়ী, চিরিরবন্দর, জয়পুরহাট, হিলি, নাটোর, রাজশাহী ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ-এর টিকিট দেওয়া হচ্ছে বালুর মাঠ হানিফ কাউন্টার থেকে।

এবারের ঈদযাত্রীদের চাহিদা ২০ আগস্টের টিকিটের। যারাই আসছেন ২০ আগস্ট রাতের টিকিটের জন্য কাউন্টারে কাউন্টারে ঘুরছেন। তবে সেই টিকিটের জন্য অনেকে সকাল ৬টার সময় এসে লাইনে দাঁড়িয়ে ১০টার মধ্যেও টিকিট হাতে পাননি।

সরোয়ার হোসেন লিটন সাভার ক্যান্টনমেন্ট কলেজের ছাত্র। তিনি সকাল ৬টা থেকে ঠাকুরগাঁওয়ের টিকিটের জন্য অপেক্ষা করছেন। সকাল ১০টার সময়ও ১৫ জনের পেছনে তার অবস্থান।

লিটন বলেন, লাইনে দাঁড়িয়েছি সকাল ৬টায় এখনও টিকিট পাইনি। আমি ২০ আগস্টের টিকিটের জন্য অপেক্ষা করছি। কিন্তু সকালেই শুনেছি ২০ আগস্টের টিকিট নেই। এখন না পেলে অন্যদিনের টিকিট দেখব।

ভাড়া বেশি নেওয়ার অভিযোগ করলেও ক্ষোভ নেই লিটনের মনে। তিনি বলেন, স্বাভাবিক সময়ে ঠাকুরগাঁওয়ের ভাড়া ৬শ’ টাকা, এখন নেওয়া হচ্ছে ৮৫০ টাকা। ঈদের সময় একটু বেশি নেবেই।

তবে গাইবান্ধার যাত্রী মিজানুর রহমান অনেকটা ভাগ্যবান। কারণ তিনি সকাল ৮টায় লাইনে দাঁড়িয়ে ৯টা ৪৫ মিনিটেই ১৭ আগস্টের টিকিট হাতে পেয়েছেন। মিজানুর বলেন, ভালো লাগছে আমি ১৭ তারিখের টিকিট চেয়েছিলাম, সেটাই পেয়েছি।

পঞ্চগড়ের যাত্রী মো. রব্বানী উত্তরা থেকে এসে সকাল ৬টা ২৫ মিনিটে লাইনে দাঁড়িয়ে সকাল ১০টায় টিকিট পেয়েছেন। তিনি বলেন, আমি ১৯ আগস্টের টিকিট নিয়েছি। কাউন্টারে ২০ তারিখের কোনো টিকিট নেই। টিকিট হাতে পেয়ে ভালো লাগছে।

যাত্রীদের অভিযোগ ও টিকিট নিয়ে হানিফ এন্টারপ্রাইজের জেনারেল ম্যানেজার মোশাররেফ হোসাইন বলেন, কোনো বাড়তি ভাড়া নেওয়া হচ্ছে না। যাত্রীরা সব সময়ই অভিযোগ করেন তবে তার সত্যতা নেই।

তিনি বলেন, আমাদের নিয়মিত ২৫০টি ট্রিপ চালু থাকে। যাত্রীরা বেশি চাচ্ছেন ২০ আগস্টের রাতের টিকিট। তাদের বুঝতে হবে রাতে কয়টা গাড়ি ছাড়ে। তাই চাইলেও ২০ আগস্টের টিকিট দিতে পারছি না।

ঈদযাত্রা নির্বিঘ্ন করতে তিনি বলেন, কোনক্রমেই যেন রাস্তায় পশুরহাট না বসে। তবে ফোরলেন প্রকল্পের জন্য স্বস্তির কথা জানালেন মোশাররেফ।

অন্যদিক গাবতলীতে সোহাগ পরিবহনের কাউন্টার ম্যানেজার সোলাইমান হোসেন বাংলানিউজকে বলেন, আমরা ৫ আগস্ট কিছু টিকিট বিক্রি করেছি। তবে কয়েকদিনের ছাত্র আন্দোলনে সেভাবে বিক্রি হয়নি। আজ সকাল থেকেই দীর্ঘ লাইন।

ভিড় রয়েছে কল্যাণপুরের কাউন্টারগুলোতেও। প্রত্যেক পরিবহন আসন ফাঁকা থাকা পর্যন্ত টিকিট বিক্রি করবে। ঈদের টিকিট হিসেবে দেওয়া হচ্ছে ১৪ আগস্ট থেকে ২১ আগস্ট পর্যন্ত। যতদিন সিট থাকবে ততদিন বিক্রি চলবে।

গত ৫ আগস্ট সকাল থেকে টিকিট বিক্রি করার কথা থাকলেও ছাত্র আন্দোলনের কারণে মঙ্গলবার থেকে টিকিট বিক্রি শুরু করেছে পরিবহন মালিকরা। অন্যদিকে বুধবার (৮ আগস্ট) থেকে ট্রেনে অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এ জাতীয় আরো খবর..

ফেসবুকে আমরা...