ব্যাংকিং খাতে ‘পরিবারতন্ত্র’ কায়েমের সুপারিশ চূড়ান্ত

ব্যাংক পরিচালনা পর্ষদে একই পরিবারের চার সদস্য থাকার সুযোগ তৈরি করে দিতে ব্যাংক কোম্পানি আইন সংশোধন প্রস্তাব পাসের সুপারিশ করেছ অর্থ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটি।

এ সংক্রান্ত প্রতিবেদন বুধবার জাতীয় সংসদে উপস্থাপন করা হতে পারে। মঙ্গলবার সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত কমিটির বৈঠকে বিলটি নিয়ে আলোচনা করা হয়। আলোচনা শেষে সুপারিশ চূড়ান্ত করা হয়।

কমিটির সভাপতি ড. আব্দুর রাজ্জাক বলেন, বিলটি যেভাবে এসেছে সেভাবে কমিটি পাস করার সুপারিশ করেছে। বুধবার কমিটি বিলটি পাসের সুপারিশ সংবলিত প্রতিবেদন সংসদে উপস্থাপন করবে বলেও জানান তিনি।

এদিকে চলতি বছরের ৮ মে মন্ত্রিসভার বৈঠকে সংশোধিত আইনের খসড়া অনুমোদনের পর থেকে সরকারের এই সিদ্ধান্তের সমালোচনা করে আসছে ব্যাংক খাত সংশ্লিষ্টরা। নতুন এই সিদ্ধান্তে বেসরকারি ব্যাংকে ‘পরিবারতন্ত্র’ কায়েমের সুযোগ তৈরি হবে বলে তারা মনে করছেন। মূলত প্রভাবশালী কয়েক ব্যবসায়ীকে সুযোগ দিতেই ব্যাংক কোম্পানি আইন সংশোধন করা হচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

সেপ্টেম্বরে বিলটি সংসদে ওঠার পর তা পরীক্ষা করে সংসদে প্রতিবেদন দেয়ার জন্য সংসদীয় কমিটিতে পাঠানো হয়। অক্টোবরে বিলটি নিয়ে সংসদীয় কমিটিতে আলোচনার কথা ছিল। তবে ওই বৈঠকে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত উপস্থিত না থাকায় আলোচনা হয়নি।

ওই বৈঠকের পর সংসদীয় কমিটির সভাপতি ড. আবদুর রাজ্জাক সাংবাদিকদের বলেন, অর্থমন্ত্রীর কাছ থেকে জানতে চাই কোন যুক্তিকে আইনের সংশোধন করা হচ্ছে। মঙ্গলবারের বৈঠকেও অর্থমন্ত্রী অনুপস্থিত ছিলেন।

প্রস্তাবিত আইনে একটানা নয় বছর পরিচালক পদে থাকার বিধানও রাখা হয়েছে। বিদ্যমান আইনে এক পরিবার থেকে সর্বোচ্চ দুজন সদস্য একটি ব্যাংকের পরিচালক হতে পারেন। আর তিন বছর করে পরপর দুই মেয়াদে মোট ছয় বছর একই ব্যক্তি পরিচালক হতে পারেন।

এরপর তিন বছর বিরতি দিয়ে আবারও পরিচালক হতে পারেন। বিদ্যমান আইনে অনেকেরই পরিচালক থাকার মেয়াদ শেষ হয়ে আসছিল। এর মাধ্যমে ব্যাংক পরিচালকদের কাছে সরকারের নতিস্বীকার হল বলেও মনে করেন অনেকে।

সংশোধনীতে পরিচালকের মেয়াদ সংক্রান্ত ধারায় বলা হয়েছে, এই আইন কার্যকর হওয়ার পর কোনো ব্যক্তি কোনো ব্যাংক কোম্পানির পরিচালক পদে একাদিক্রমে (একটানা) নয় বছরের বেশি থাকতে পারবেন না।

একই ধারায় বলা হয়, একাদিক্রমে নয় বছর পদে থাকার মেয়াদ শেষ হওয়ার পর তিন বছর অতিবাহিত না হলে তিনি পরিচালক পদে পুনঃনিযুক্তির জন্য যোগ্য হবেন না। এই ধারার ব্যাখ্যায় বলা হয়, কোনো ব্যক্তি পরিচালক পদে তিন বছরের চেয়ে কম সময় অধিষ্ঠিত না থাকলে একাদিক্রমে নয় বছর গণনার ক্ষেত্রে উক্ত সময়েও অন্তর্ভুক্ত হবে।

ব্যাংক কোম্পানি আইন-১৯৯১ পাস হওয়ার পর থেকে বেসরকারি ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদে পরিচালকদের মেয়াদ-সম্পর্কিত ধারাটি এ পর্যন্ত পাঁচবার সংশোধন করা হয়েছে।

এই ধারায় ব্যাংকের পর্ষদে একজন পরিচালক কত বছর পরিচালক থাকতে পারবেন, সে কথা বলা রয়েছে। সর্বশেষ ধারাটি সংশোধন করা হয় ২০১৩ সালে। এবার ষষ্ঠবারের মতো সংশোধনের প্রস্তাব এসেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এ জাতীয় আরো খবর..

ফেসবুকে আমরা...