প্রবন্ধ:: শীতের পরিবেশে গ্রামীণ আয়োজন

মো: গোলাম রাব্বানী :: প্রারম্ভিকতা : হেমন্তের নিমকাঠি যখন নাড়া দেয়/ তখনই গ্রামীণ জন জীবনে একটু আলাদা পরিবেশ দেখা যায়; প্রকৃতির সবুজ- সমারোহপূণের মাঝে হলুদ সরিষার ফুলে জানান দিয়ে যায়- শীত প্রায় আগত ।নানান ক্ষেতের সমারোহে প্রকৃতি ও মানুষ- যেন একাকার । নানান সাংস্কৃতিক আয়োজন ও খাবারের ফুলঝড়ি নিয়ে আদ্রহীন ও শুষ্ক আবহাওয়াতেও গ্রামীণ পরিবেশে শীতের আলাদা কদর আছে ।

শীতে গ্রামীণ প্রকৃতি : শহরের তুলনায় শীতে গ্রামীণ প্রকৃতি একটু অন্য রকম হয়/ হাটে -বাজারে বহুরূপী সব্জির সমারোহে পরিপূর্ণ থাকে । ফুলকপি/ বাঁধাকপি; টমেটো; গাজর ; মিষ্টি আলু/ কিশুর; সহ নানান প্রজাতিভুক্ত ক্ষেত । কঠিন হিমবাহতার মাঝেও গ্রামীণ পরিবেশ যেন স্বাভাবিক মনে হয়। কৃষক গরু নিয়ে মাঠে নেমে পরে; ফসলি জমির ক্ষেদমতে; কুয়াচ্ছন্নে বৈরী আবহাওয়ায় বাতাস যেন শরীরকে আঁকড়ে ধরে;।এ রুক্ষতার মাঝেও ফুল ফোঁটে রজনীগন্ধা / জুঁই / গাঁদা/ গ্রামীণ ভাষায় মোরগ ফুল/ যেন প্রকৃতির রূপকে মোহিত করে । আমের মুকুল / কাঁঠালগাছের মোঁচা যেন প্রকৃতির শোভা।

গ্রামীণ সাংস্কৃতিক আয়োজন: কুয়াশার আচ্ছনতা ও হিমবাহতার মাঝেই যেন গ্রামীণ পরিবেশে আনন্দের ঢেউ বয়ে যায় । তাই শীতে পৌষের মেলা; যাত্রা; বাউলি গান; জারি – সারি গান; নানান গানের আয়োজন ; বর্তমানে শীতে এখন বাণিজ্য মেলার আয়োজন যেন শীত- কে অন্য মাত্রায় নিয়ে গেছে; এসব সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে নানান দোকান; বই / কাপড়/ পিঠা- কসমেটিক ; নানান খাবারের আয়জন থাকে । গ্রামীণ হস্তশিল্পের বাহারি সমারোহে সাংস্কৃতিক অঙ্গন যেন শোভা
বর্ধন করে ।

বই বিতরণ ও আনন্দ মেলা:– বর্তমানে দেশরতœ জননেত্রী “স্বাধীন বাংলার রূপকার ” বঙ্গবন্ধুর কন্যা “শেখ হাসিনা ” বিনামূল্যে বই বিতরণ শহর-গ্রামে শীতের সময়ে যেন নতুন আনন্দের মেলা সৃষ্টি যোগ করেছেন ।  শীতে গ্রামীণ পরিবেশে খাবারের আয়োজন: সাংস্কৃতিক জীবনে যেমন আনন্দ – তেমনি এ সময় গ্রামীণ জন জীবনের প্রতিটি বাড়িতে নানান খাবরের আয়োজনে পরিবিষ্ট থাকে মিষ্টি আলু/ পিঠা- পায়েস; কুশলি – ধাপা; চিতাই; মুষ্টি পিঠা; সাতঘুরি; খেঁজুর রসের পিঠা সহ বহুরূপী খাবারে পরিপূর্ণ থাকে । আতœীয়- স্বজনপ্রীতির জন্য নিমন্ত্রণ
করা হয় আতœীয়দের । এ যেন মিলন মেলা! ।

শীতের বিড়ম্বনা : এতো আনন্দ ও মিলন মেলার আয়োজন এর মাঝেও আছে শীতের
বিড়ম্বনা / তবে গ্রামীণ জন জীবনে বেশী; পোশাক পরিচ্ছদ না থাকার দরুনে গরীব মানুষের কষ্ট হয় । কুয়াশার আবরণে রাস্তাঘাট দেখা যায় না/ তাই রোড এক্সিডেন্ট পরিলক্ষিত হয়।

শেষাংশ: শীতের এতো রুক্ষতার মাঝে আনন্দ-বেদনা আতিথিয়তার জন্য সত্যিই জীবনকে উপভোগ করেন গ্রামীণ সমাজের মানুষ-! / তাই শীত এলে গ্রামীণ জীবন প্রকৃতি/ সাংস্কৃতিক অঙ্গন; খাবারের আয়োজন ও স্বজনপ্রীতির মেলায় যেন শীত আমেজের ।

লেখক :: মো: গোলাম রাব্বানী, বর্ষাইল / নওগাঁ

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এ জাতীয় আরো খবর..

ফেসবুকে আমরা...