ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় মিলাদ ও কিয়ামের মাধ্যমে ঈদে-মিলাদুন্নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম উদযাপন

পেস বিজ্ঞপ্তি :: ১২ই রবিউল আওয়াল পবিত্র “ঈদে মিলাদুন্নবী(দঃ)” উপলক্ষে আজ সকাল ০৯ ঘটিকায় আহলে সুন্নাত ওয়াল জামা’আত ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌর শাখার উদ্যোগে পৈরতলাস্থ মধ্যপাড়া বাস স্ট্যান্ডশনে পৌর আহলে সুন্নাত ওয়াল জামা’আতের সিনিয়র সহ-সভাপতি বিশিষ্ট ঠিকাদার মোহাম্মদ আলাল উদ্দিন আলালের সভাপতিত্বে এক জশনে জুলুছ অনুষ্ঠিত হয়।

পৌর শাখার ঈদে মিলাদুন্নবী (দঃ) উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ রফিকুল ইসলামের সঞ্চালনায় এ সময় বক্তব্য রাখেন পৌর আহলে সুন্নাত ওয়াল জামা’আতের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ নূরে আজম, সাংগঠনিক সম্পাদক পীরজাদা খাজা নওশাদ কবির চিশতী, সাদেকপুর দাখিল মাদ্রাসার শিক্ষক মাও. সেলিম হোসাইন, ঈদে মিলাদুন্নবী(দঃ) উদযাপন পরিষদের সহ-সভাপতি পীরে তরিকত হোসাইন জাকির চিশতী, মাও. মজিবুর রহমান, মোহাম্মদ আতাউর রহমান জাকির, পীরজাদা মোহাম্মদ গোলাপ শাহ খাদেম, সহ-সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ আবু সাইদ মোল্লা, সাংগঠনিক সম্পাদক ক্বারী মাও. আবু রায়হান, আইন বিষয়ক সম্পাদক এড. হেলাল উদ্দিন দুলাল, প্রচার সম্পাদক আব্দুল কাদির ভূইয়া, হিউম্যান রাইটস রিভিউ সোসাইটি ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ খবির উদ্দিন, দা’য়াতে ইসলামী ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার মোবাল্লিগ মাও. রেজাউল করিম আত্তারী, মাও. ইউনুস আত্তারী, ছাত্রসেনা ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সভাপতি মোহাম্মদ ইকবাল হোসাইন শাহ বাবুল, সদর উপজেলার সাবেক সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ হেলাল উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম রিফাত, নাটাই দঃ ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ মহিউদ্দিন আহমেদ, মোহাম্মদ মাহতাব মিয়া, মোহাম্মদ রউশন আলী মোল্লা, মোহাম্মদ গোলাম রনি সহ প্রমূখ। বক্তাগন বলেন মহান আল্লাহ তায়ালা দুজাহানের বাদশা নবী হযরত মোহাম্মদ মোস্তফা, আহমাদ মোস্তফা সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম কে সমস্ত সৃষ্টির জন্য নেয়ামত, রহমত ও সৃষ্টির প্রাণ হিসেবে প্রেরণ করেছেন। যদিও দুজাহানের বাদশা নবী হযরত মোহাম্মদ মোস্তফা, আহমাদ মোস্তফা সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম ৫৭০ খ্রিস্টাব্দে পৃথিবীতে শুভ আগমন করেছেন। কিন্তু রাসুল (দঃ)’র সৃষ্টি আদম (আঃ)’র ও পূর্বে। আর এই নিয়ামতের শোকরিয়া আদায় করাই হল ঈদে মিলাদুন্নাবী। নিয়ামত পেয়ে যারা শোকরিয়া আদায় করে না তার মতো কৃপণ আর কে হতে পারে না। যদি ১২ই রবিউল আওয়াল দুজাহানের বাদশা নবীর শুভ আগমন না হত তবে আমরা যে দুটি ঈদ ঈদুল ফিতর ও ঈদুল আযহা উদযাপন করি সে দুটি ঈদ ও পেতামনা। সুতরাং যে নবীর সৃষ্টিতে আমরা সব কিছু পেয়ে সয়ংসম্পূূর্ণ হলাম সে নবীর আগমনের দিনে আল্লাহ হুকুম অনুসারে আনন্দ অনুষ্ঠান ও দান খয়ারত করে আল্লাহ তায়ালার নৈকট্য লাভের চেষ্টা করতে হবে।জশনে জুলুছটি মধ্যপাড়া বাস স্ট্যান্ড থেকে শুরু হয়ে শহরের প্রদান প্রদান সড়ক প্রদক্ষিণ করে পৈরতলা খানকায়ে চিশতিয়া দরবার শরিফে গিয়ে সংক্ষিপ্ত আলোচনা মিলাদ ও কিয়ামের মাধ্যমে সমাপ্তি করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এ জাতীয় আরো খবর..

ফেসবুকে আমরা...